,



অসহায় পরিবারের পাশে আল গণি ইন্টারন্যাশনাল চ্যারিটি অর্গানাইজেশন

নিজস্ব সংবাদদাতা : বিশ্বব্যাপী মহামারী করোনা ভাইরাসে আজ মানুষের জীবন মহাসংকটে ফেলে দিয়েছে। বিশেষ করে দেশের নিম্নআয়ের মানুষের জীবনে নেমে এসেছে অবর্ণনীয় কষ্ট। সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবান মানুষ এই করোনা সংকট মোকাবিলায় সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন।

বৈশ্বিক করুনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট সংকটে বিপন্ন বিপর্যস্ত মানবতার পাশে বিশাল চাহিদার মাঝে সীমিত অনুদান নিয়ে বিয়ানীবাজার উপজেলার আলীনগরে দাড়িয়েছে আন্তর্জাতিক মানবতাবাদী সংস্থা (এজিআইসিও)। এছাড়া এজিআইসিও বৃটেনের মাটি থেকে বহু মানবতাবাদী সংস্থার সাথে যৌথ ভাবে কাজ করে যাচ্ছে ।

তারই ধারাবাহিকতায় বিয়ানীবাজার উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নে লকডাউনে থাকা অসহায় পরিবারের পাশে এসে দাড়িয়েছেন আল গণি ইন্টারন্যাশনাল চ্যারিটি অর্গানাইজেশন’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এম এ হোসাইন।

রবিবার সকালে আলীনগর গ্রামে আনোয়ার মন্জিলে আল গণি ইন্টারন্যাশনাল চ্যারিটি অর্গানাইজেশন’র কার্যালয়ে আলীনগর ইউনিয়নে লকডাউনে থাকা ৪০টি পরিবারের মাঝে নগদ ১হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ১নং আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ, আল গণি ইন্টারন্যাশনাল চ্যারিটি অর্গানাইজেশন’র ডেপুটি চেয়ারম্যান এম আখতার হোসাইন, আলীনগর দর্পণ টিভির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আবুল কাসিম আজাদ, গোলাপগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক মোঃ রুবেল আহমদ, যুবলীগ নেতা সাদ উদ্দিন, যুব জমিয়ত আলীনগর ইউনিয়ন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন, আলীনগর দর্পণ টিভির ক্যামেরা পার্সন আমিনুল ইসলাম, ইমতিয়াজ আহমদ মাহিন প্রমুখ।

এদিকে আল গণি ইন্টারন্যাশনাল চ্যারিটি অর্গানাইজেশন’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এম এ হোসাইন বলেন, করোনা ভাইরাস হচ্ছে একটি প্রাণঘাতী ভাইরাস। এই করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন। আর তাতে বিপাকে পড়েছেন অনেক খেটে খাওয়া মানুষ। আর তাদের কথা চিন্তা করে আমি আমার সামর্থ্য অনুযায়ী আমার ইউনিয়নের লকডাউনে থাকা ৪০টি পরিবারকে সহযোগীতা করেছি এবং আমার এ সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে এবং আসন্ন রমজান মাসে আরো সাহায্যে সহযোগীতা করার পরিকল্পনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, আল গণি ইন্টারন্যাশনাল চ্যারিটি অর্গানাইজেশন’ কে পরিচিত করছে একটি ঐতিহাসিক মানবতাবাদী পরিবার। যে পরিবার অতীতে বৃটিশ শোষণ পশ্চিম পাকিস্তানের শোষণ নিপীড়নে বিপন্ন বিপর্যস্ত মানবতার পাশে দাড়িয়ে আর্তমানবতার সেবায় কাজ করছে। সেই ১৯৭১ সালের জাতীয় দূর্যোগের সময় এই পরিবার সাহসী ভূমিকা পালন করছে। তিন সদস্য ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের সামরিক বাহিনীতে যোগদান করে জীবন মরন যুদ্ধ করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে গুুুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন।

জনপ্রশাসনে সাথে সম্পৃক্ত হয়ে এই পরিবারের মাটি ও মানুষের সেবক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মরহুম এম গনী মিয়া আলীনগর ইউনিয়নে স্বাধীনতা সংগ্রামে দেশ ও দশের খেদমত করে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেন। এই আন্তর্জাতিক মানবতাবাদী সংস্থার পূর্ব পুরুষ গনের ইতিহাস ঐতিহ্যকে বুকে লালন করে সেই পরিবারের সন্তান লন্ডন প্রবাসী এম এ হুসাইন মানবতাবাদী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। শুধু তাই নয় বার্মা, সিরিয়া, ফিলিস্তিন, কাশ্মীর সহ বিশ্বের বিপন্ন বিপর্যস্ত মানবতার পাশে দাড়িয়ে আর্তমানবতার সেবায় কাজ করছে এই মানবতাবাদী সংস্থা। এছাড়া মিডিয়া পৃষ্ঠাপোষকতা, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ইসলামি শিক্ষা সংস্কৃতি কে লালন পালনে অবিরাম অবিরত কাজ করছে এই মানবতাবাদী সংস্থা।

Comments are closed.

আরো সংবাদ